স্টাফ রিপোর্টার,ঈদগাঁও ::– কক্সবাজারের নবঘোষিত উপজেলা ঈদগাঁওতে দীর্ঘ দেড়মাস ধরে ক্রামা ধর্মাবলম্বী এক রোগীর পাশে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন মানবিক ডাক্তার মো: ইউসুফ আলী। 
ঈদগাঁও মড়েল হাসপাতাল এন্ড ডায়াবেটিস কেয়ার সেন্টারে দীর্ঘ দেড়মাস পূর্বে বান্দরবান জেলার আলীকদম উপজেলার কুরুকপাতা ঝিরি নামক এলাকা থেকে ক্রামা ধর্মাবলম্বী কাংপ্রে ম্রোর স্ত্রী ৮ সন্তানের জননী কিংপ্রে ম্রো  সেপটিক এবরশন রোগ নিয়ে ভর্তি হন। 


প্রাপ্ত তথ্য মতে, রোগীটিকে ভর্তির পর কয়েক ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়। তারপর ডিএন্ডসি অপারে শন করা হয়। জরায়ুর অবস্থা বেশি খারাপ থাকায় জরায়ু ছিদ্র হয়। সেই অনুয়ায়ী চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যাচ্ছেন ডাক্তার ইউসুফ।কিন্তু হিউজৃ পেরিটেনাইটিস ডেভেলপ করে। তার পর ল্যাপারোটোমি অপারেশন করে পরিস্কার করা হয়। পরবর্তীতে পটাসিয়াম কমে গিয়ে প্যারালাইটিক আইলিয়াস ডেভেলপ করে। পটাসিয়াম ঘাটতি পূরণ হলে রোগীর উন্নতি হয়।পরবর্তীতে  উন্ড ইনফেকশন হয়। সেটাও রিগুলার ড্রেসিং ও প্রোপার এন্টিবায়োটিকে ইমপ্রুভ করে।বর্তমানে রোগীটি ভাল আছে। আশা করা যায়, ৩/৪ দিনে মধ্যে বাড়ী যেতে পারবে রোগীটি। 


২৩শে জুন সন্ধ্যায় হাসপাতালের তৃতীয় তলায় অবস্থানরত রোগীসহ তার স্বামীর সাথে কথা হলে তারা জানান, চিকিৎসা বাবদ কোন প্রকার অর্থ নেইনি বরং নানানভাবে সহযোগিতা করেই যাচ্ছেন ডা: ইউসুফ আলী।    
এ ব্যাপারে ডা: ইউসুফ আলী জানান, সুদুর আলীকদম থেকে আসা ক্রামা ধর্মাবলম্বী মহিলা রোগীটির দেড় মাসের হাসপাতাল চার্জ,সার্জন ফি,এনেস্থেশিয়া ফি,ড্রেসিং চার্জ, ঔষধ বাবদ দুই লক্ষের মত খরচ এসেছে। একজন অসহায় জুমচাষী এতটাকা দেওয়াতো দূরের কথা তারা নিজের খাবারটাও কিনতে পারছেনা।

রোগীর স্বামী ৪ দিন মুড়ি চিড়ে খেয়ে চলছিল।অতঃপর তিনি জানতে পেরে তার পরিচালিত মাদ্রাসার হোস্টেল হতে স্বামী-স্ত্রী দুইজনের তিন বেলা খাবার ব্যবস্থা করে দেন। ডাক্তার সাহেব ঔষধ কোম্পানী হতে দামী ঔষধ গুলো ফ্রী ব্যবস্থা করে দেন। তিনি আরো জানান, এনেস্থিসিয়ার ডাক্তারও তার কোন ফি নেননি। যেন এক মানব তার অনন্য নজির।

By cpadmin

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.